এই পোস্টটি ২৪৪ বার পড়া হয়েছে


জীবন পাতার অনেক খবর রয়ে যায় অগোচরে

পুরোনো দিনের সিনেমার একটি গানের কলি- প্রতিদিন কত খবর আসে যে কাগজের পাতা ভরে, জীবন পাতার অনেক খবর রয়ে যায় অগোচরে!

গতকাল ২২ আগস্ট ঢাকায় এক জায়গা থেকে আসছিলাম বা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাচ্ছিলাম। একজনকে দেখে আমার মনে পড়লো উপরের গানের কলি।

তার কথা

পঞ্চাশ বা ঠিক এই রকম বা তার বেশি বা কম বয়সের এক নারী। তিনি বাসে উঠলেন। না, তিনি বাসে যাত্রী হিসেবে ওঠেন নি! তার হাতে কয়েকটি বই। নামাজ শিক্ষার বই তিনি বিক্রি করছেন। বাসে উঠেই চোখের ছানাবড়া অবস্থার মতো বাসযাত্রীদের দিকে কিছুক্ষণ চেয়ে থাকলেন। আমার নজর পড়লো।

তারপর তিনি দুয়েক বাক্য বলার চেষ্টা করলেন, কাঁদো কাঁদো অবস্থায়। তিনি বললেন, আমার দুই পুত্র-কন্যা। পুত্রের বয়স ৩ আর কন্যার ১২। তিনি স্বামীকে হারিয়ে পথে বসেছেন। তিনি বললেন, তিনি নামাজ শিক্ষার বই বিক্রি করছেন। কেউ দয়াপরবশ হয়ে কিনতে পারেন। তারপর!

না, বোধহয় কেউই কিনলো না! তারপর, তিনি বোধহয় আর পারলেন না। তিনি চুপচাপ বাসের এক সীটে বসে পড়লেন। বাসের টিকেট বিক্রেতা আসলেন। তিনি তার কাছ থেকে বাসভাড়া চাইলেন। জবাবে নারী বললেন, তিনি বই বিক্রি করেন। এবং তার মাথা ঘোরাচ্ছে। তাই তিনি বসে পড়েছেন। টিকেট চেকার তাকে কিছুক্ষণ গালমন্দ করলেন। কিন্তু নারী নির্বিকার! মুখে কাপড় চেপে বসে আছেন।

তারপর একসময় অগোচরে নেমে পড়লেন। হারিয়ে গেলেন ঢাকার বিস্তৃত জনসমুদ্রে!

এই নারীটির জীবনপাতার খবর হয়তো রয়ে যাবে অগোচরে!

Advertisement