এই পোস্টটি ৪২৪ বার পড়া হয়েছে


কূটনৈতিক শিষ্টাচার-প্রধানমন্ত্রী হলে তাকে ‘জুলফি’ বলা বন্ধ করি:জামশিদ মার্কার

[ কূটনৈতিক শিষ্টাচার সংক্রান্ত একটি উদ্ধৃতি এখানে দেয়া হলো । এই উদ্ধৃতির তথ্যসূত্র হলো- পাকিস্তানের দ্য ডন পত্রিকায় প্রকাশিত আনজুম নিয়াজের “ইতিহাসের সঙ্গে সাক্ষাতকার”; মহসিন হাবিব কর্তৃক অনুবাদকৃত; প্রকাশ: কালের কন্ঠ; ০৯ মার্চ, ২০১০। মঙ্গলবার;পৃ:১৬ ]

“রাষ্ট্রদূত জামশিদ মার্কার। একজন পেশাদার কূটনীতিক না হয়েও মার্কার ৩০ বছর ধরে বিভিন্ন দেশে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত হিসেবে কাজ করে রেকর্ড গড়েছেন। তিনি বিশ্বের প্রথম সারির ১০টি রাজধানীতে রাষ্ট্রদূতের ভূমিকা পালন করেছিলেন।

মার্কার জুলফিকার আলী ভূট্টোর ঘনিষ্ট বন্ধু ছিলেন। তাঁর ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা করতেন।

তিনি বললেন: জুলফি যখন প্রধানমন্ত্রী হলেন, তখন আমি তাঁকে জুলফি বলা বন্ধ করি।

জুলফিকার আল ভূট্টো প্রধানমন্ত্রী হবার পরে তাঁর বন্ধু তাঁকে বন্ধু ভাবলেও ডাকেননি বন্ধুকে যে নামে তিনি ডাকতেন। পাকিস্তানের রাজনীতিতে সামন্তীয় সংস্কৃতির চর্চা বেশি বলেই মনে হয়। এবং হয়তো এই রাষ্ট্রটির কূটনীতিক কর্মকর্তারা এই ধাঁচের কূটনীতিক শিষ্টাচারই বজায় রেখে চলতো।

Advertisement