২৭টি আনারস চারা রোপন করে দিয়ে শুরু হলো উৎপাদনে উদ্বুদ্ধ করার কাজ!

মাত্র ২৭টি আনারস চারা! এক ব্যক্তির অনাদরে রাখা আনারস বাগান থেকে চারা তুলে নিলাম আমরা! তারপর সেগুলো একটি ঝলায় ভরে হাতে একটি তাগল/দা নিয়ে রওনা দিলাম। কিছুক্ষণ হেটে গিয়ে গঙ্গারাম নদীর ধারে আসলাম। সেখানে পাড়ে রাখা নৌকা দিয়ে নদী পার হলাম। নদীর পাশেই রামঅছড়া গ্রামের সীমানা শুরু।  পাহাড়ি পথ বেয়ে গেলাম দিলদাজ্জে বাপ-এর বাড়িতে। সেখানে তার পরিবারসহ সবাই তখন ছিলো। তারা দুপুরের বিশ্রাম নিচ্ছিলো। তাদের বললাম- আমরা এসেছি আপনার বসতভিটার কাছে চারটি আনারস চারা লাগিয়ে দিতে। তাকে বললাম- আপনার বসতভিটার চারপাশে কেন এত ঝাড়? অনুরোধ করলাম কয়েকদিনের মধ্যে যেন তিনি তার ঝাড় পরিষ্কার করেন। ... বিস্তারিত পড়ুন →

দীঘিনালা-খাগড়াছড়ির সীমানা পাড়া ঘুরে – পানির জন্য তারা কেন সরকারের কাছে দাবি জানায় না!?

তারিখ: ২৪ মার্চ, ২০১৪ দীঘিনালা-খাগড়াছড়ি রোডের ৯ মাইল এলাকা। পাকা পথের বা঳ক উত্তর দিকে ইট বিছানো একটি পথপাহাড় বেয়ে চলে গেছে। পাহাড়ের একেবারে উপরে একটি ইশকুল রয়েছে। সেখান থেকে দীঘিনালা দেখা যায়। নয়নাভিরাম পাহাড় ঘেরা দীঘিনালাকে এখান থেকে অপরূপ রূপবতী বলেই মনেহয়! আমি সেখানে না থেমে ‘সীমানা পাড়া’ গ্রামে চলে গেলাম। সীমানা পাড়া মানে হলো এই গ্রামটির মাঝখানে দীঘিনালা ও খাগড়াছড়ি উপজেলার সীমান্ত চলে গিয়েছে। চৈত্রের এই তাপদাহে দেখলাম এলাকার জনগণ কলসি দিয়ে পানি আনছে। প্রশ্ন করলাম, কোত্থেকে পানি আনেন? তারা বললো পাশের ঝিরি থেকে তারা পানি আনে। চৈত্রের এই সময়ে তারা পানির অভাবে ... বিস্তারিত পড়ুন →