টক শোতে হাতাহাতি- যাহাই কার্য তাহাই কারণ তো বটেই

একুশে টিভির একুশের রাতে টক শো’তে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে দিবাগত রাত সোমবার মানে ০৫ মে, ২০১৫। স্থানঃ কারওয়ান বাজার একুশে টিভি সম্প্রচার কেন্দ্র।হাতাহাতিতে অংশ নিয়েছেন মেজর জেনারেল(অব:) আব্দুর রশিদ (অব.) এবং অধ্যাপক ড. শহীদুজ্জামান(তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক)। হাতাহাতির ঘটনা লাইভ দেখানো হয়েছে অন্তত কিছুক্ষণের জন্য। লিংক এ অনুষ্ঠানের প্রযোজক ছিলেন মাসুদুল হাসান রনি। সঞ্চালক ছিলেন মঞ্জুরুল আলম পান্না। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আরো ছিলেন প্রথম আলোর বিশেষ প্রতিনিধি টিপু সুলতান। সম্ভবত বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের উত্থান ও ... বিস্তারিত পড়ুন →

প্যাঁচ নিয়ে বাসু চাকমা’র বয়ান

আমার স্বজাতীয় ভ্রাতা এবং ভগ্নিগনের নিকট প্রশ্ন রহিল,উত্তরাধীকার সূত্রে পাওয়া সরলতা কোথায় গুপ্ত করিব? আমি কিঞ্চিত হতাশ হইয়া পরিয়াছি এই ভেবে যে এতকাল জিলাপির দেশে থাকিয়া উচ্চ বিদ্যার অর্ধ পাঠ চুকাইয়া এখনো জিলাপির প্যাঁচ শিখিতে সমর্থ হয়নাই! জিলাপির দেশে সাত ঘাটের পানি খাইয়া এখন বরজোর প্যাঁচহীন বিনি ভাতের এগ নুডলস্ তৈরি করিতে পারি। বিনি ভাতের বলিলাম এই কারনে যে ইহা এতই আঠালো যে ইন্দ্রিয় সচেতন থাকিলে ইহা নুডলস্ হইলেও অবচেতন হইবা মাত্র ইহা দলা পাকাইয়া একখানা সান্নে পিদের আকার ধারনকরে, ইহা হতে জিলাপি তৈরির লক্ষ্যে মন স্থির করত পুর্বক চাপ প্রয়োগ করিবা মাত্র ইয়া বড় একখানা ... বিস্তারিত পড়ুন →

সাম্প্রদায়িক পার্বত্য চট্টগ্রাম: নাটাই সরকারের হাতে, জুম্ম জনগণ খুজে বেড়ায় সহায়!

(লেখাটির শিরোনাম হতে পারতো, সামান্য মানববন্ধনেই সরকার তথা দীঘিনালা প্রশাসনের এতো ভয়!) অবস্থা্দৃষ্টে মনে হচ্ছে আশ্রয়হীন হয়ে আছি! মনে হচ্ছে সহায়হীন হয়ে পড়েছি! সরকারের হাতে রয়েছে সব লাগাম, ঘুড়ির নাটাই। ইচ্ছে করলেই ধরতে পারে লাগাম! নাটাই টেনে ধরতে পারে যখন তখন! গত ৩০ জুন দীঘিনালায় যুবফোরামের সমাবেশ থেকে ঘোষনা দেয়া হলো, বাবুছড়ায় বিজিবি কর্তৃক ভুমি বেদখলের প্রতিবাদে ৩ জুলাই এলাকার জনগণ বাবুছড়া থেকে দীঘিনালা পর্যন্ত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবে, এবং সে কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ হবে বলে ঘোষনা দেয়া হলো। কিন্তু, হঠাৎ কী যে হলো! আকস্মিক দীঘিনালা প্রশাসন কোত্থেকে যেন আবিষ্কার করলো ... বিস্তারিত পড়ুন →